দ্রুত ফেসবুকে লাইক বাড়ানোর টিপস

এর আগে আমাদের এফ কমার্স টু ফেসবুক মার্কেটিং এর মেগা সিরিজটিতে আপনাদের বেশ ভালো সাড়া পেয়েছিলাম। এরপর আপনারা জিজ্ঞেস করেছিলেন ভাই আমার ফেসবুক পেইজ আছে। কিন্তু আমার এই মুহূর্তে টাকা নেই যে এড রান করে লাইক নিয়ে আসবো। এখন আমি কি করতে পারি যাতে পরে আমার পেইজে লাইক বাড়ানো‌ যায়। তাই প্রশ্নের জন্য ভাবলাম একটা আর্টিকেল লেখাই যায়। তো চলুন শুরু করা যাক। আমাদের ফেসবুক পেইজে লাইক বাড়ানোর ১০টি মেগা টিপস নিয়ে:


১. ছবিসহ পেইজে পোস্ট করুন


বিভিন্ন পেইজে দেখা যায় যে শুধু একটা কিছু লিখে পোস্ট করা হচ্ছে কিন্তু কোনো ছবি দেয়া হচ্ছে না। এতে করে লাইক কম আসে। কেননা আপনি যখন কিছু লিখছেন চেষ্টা করুন তার সাথে কোনো একটা রিলিভেন্ট কিছু পিক পোস্ট করতে। কেননা ছবি ছাড়া পোস্ট তেমন একটা রিচ হয় না।‌ অন্তত পক্ষে মানুষের পেনশন গেইন করার জন্য হলেও চেষ্টা করুন যে ছবিসহ পোস্ট করতে। ছবিসহ পোস্ট করলে আপনার রিচ আগের চেয়ে অনেক বেড়ে যাবে এবং দেখতেও সুন্দর লাগবে।


২. ইন্টারেস্টিং কিছু পোষ্ট করুন

আসলে পেইজে লাইক না আসার হরেক রকমের কারণ রয়েছে তবে তার মধ্যে একটা মূল কারণ হচ্ছে ইন্টারেস্টিং কিছু পোষ্ট না করা‌‌। আসলে মানুষ কখন কোনো একটা পেইজে গিয়ে লাইক দেয় বা ফলো করতে শুরু করে? যখন সে পেইজে যাবার পর সে ইন্টারেস্টিং কিছু পায় ঠিক তখনই সে ঐ পেইজে যায় এবং তা ফলো করতে থাকে‌। তাই আপনি যাই পোস্ট করুন না কেন আপনার নিশ বেসড চেষ্টা করুন যে ইন্টারেস্টিং এবং আনকমন কিছু পোষ্ট করার। এতে করে দেখা যাবে একসময় মানুষ আপনাকে অন্যের চেয়ে ইউনিক ভাবতে শুরু করবে এবং ভাববে আপনি কিছু জানেন তখন এমনিতেই হুরমুরিয়ে লাইক আসতেই থাকবে আসতেই থাকবে।


৩. ওয়েবসাইট থাকলে প্লাগিন এড করুন


ওয়েবসাইট আছে আপনার? আচ্ছা যদি থাকে তবে সেটা আপনার জন্য একটা প্লাস পয়েন্ট। কারণ এই ওয়েবসাইটে অনেক প্লাগিন ব্যবহার করা যায়। এইসব প্লাগিনগুলো অনেক অনেক উপকারী। কেন? কারণ আপনার ওয়েবসাইটের ট্রাফিক দিয়ে আপনি ইজিলি আপনার পেইজর জন্য লাইক জেনারেট করতে পারবেন। কিভাবে? কিচ্ছু না জাস্ট আপনার ওয়েবসাইটে পেইজ লাইকের একটি ছোট্ট প্লাগিন জুড়ে দিন। তারপর যারা আপনার ওয়েবসাইটে আসবে তাদের ভালো লাগলে লাইক দিলে তা অটোমেটিকালি কনভার্ট হয়ে পেইজে চলে যাবে। আপনি একটা জিনিস লক্ষ্য করলে দেখতে পারবেন তা হলো বর্তমানে অধিকাংশ ওয়েবসাইটে ফেসবুক পেইজের লাইকের প্লাগিন অপশন এড করা থাকে। তাহলে এবার বলুন আপনি কেন শুধু শুধু পিছিয়ে থাকবেন?


৪. অন্য পেইজে একটিভিটি বাড়ান


অন্য পেইজে আপনার পেইজে একটিভিটি বাড়ান। এটি ফেসবুকের পেইজে লাইক বাড়ানোর অন্যতম বড় একটা টিপস। কারণ আমরা সোশ্যাল ইনফ্লুয়েন্স হয়ে কাজ করার সময় বিভিন্ন পেইজে মন্তব্য করে থাকি‌।‌ কিন্তু মজার ব্যাপার হলো সেই মন্তব্যগুলো যদি আপনি আপনার পেইজ থেকে করতে পারেন তাহলে দুটি দিক দিয়ে উপকার। তা হলো: পেইজটা সবার ফোকাসে অটোমেটিক চলে আসবে এবং পেইজে কিছু গুরুত্বপূর্ণ ট্রাফিক অটোমেটিক চলে আসবে আর সাথে সাথে লাইকটও বেড়ে যাবে। আর অন্য বড় পেইজের সাথে যদি আপনার ভালো নেটওয়ার্কিং থাকে তবে তাদের দিয়ে তাদের পেইজে প্রচার করার চেষ্টা চালাতে পারেন। এটা টিপসটি হতে পারে একটি বড় মাধ্যম ফেসবুকে পেইজে ট্রাফিক জেনারেট করার।


৫. পেজে কন্টেষ্টের আয়োজন করুন

শুধু পেইজে পোস্ট করেই সীমাবদ্ধ রাখবেন না।‌ পেইজে আরো ইন্টারেস্টিং কিছু করুন যাতে মানুষ না চাইতেও আপনার পেইজে আসে এবং আপনার পেইজ থেকে না যায়। কি ভাবছেন? কি করা যায় তাই তো? আসলে তেমন আহামরি কিছু না। পেইজে নিয়মিত কন্টেষ্টের আয়োজন করতে পারেন। প্রতি সপ্তাহে একবার নাহয় প্রতি মাসে একবার করে কন্টেষ্টের আয়োজন করুন। কারণ প্রতিযোগিতা করে কিছু জিততে পারলে মানুষ তা বেশি পছন্দ করবে। আর তখন মানুষ নিজেরাও যুক্ত হবে এবং অন্যকেও যুক্ত হতে উৎসাহ দিবে। তাই যদি আপনার নিয়ত থাকে যে পেইজের এনগেজমেন্টটা বাড়াবেন তবে এই টিপসটা আপনার জন্য অনেক বড় কিছুই বলা যায়। কন্টেষ্ট আয়োজন করলেই বুঝতে পারবেন।


৬. ফলো ৮০-২০ রুল

আমি এমন অনেক পেইজ দেখেছি যেখানে সারাদিন শুধু সেল পোষ্ট আর সেল পোষ্ট হতেই থাকে। কিন্তু সেল পোষ্ট ছাড়া আর কিছু হতেও দেখিনি। এমনকি সেসব পেইজে লাইকের অবস্থাও ভালো না। একবার একজনকে জিজ্ঞেস করেছিলাম সে বললো তেমন একটা ভালো হচ্ছে না। এই সেল ভালো না হবার কারণ কি জানেন? সে ট্রাফিককে কাস্টমারে রূপান্তর করতে পারে নি। বরং সে ট্রাফিককে বিরক্ত করেছে এবং ট্রাফিক তার থেকে চলে গিয়েছে। আসলে ট্রাফিকরা সারাদিন শুধু সেল পোষ্ট দেখতে চায় না।‌ তারা বিরক্ত হয়। তাই তারা যেন বিরক্ত না হয় তার জন্য আপনি ৮০-২০ রুল ফলো করতে পারেন।


৮০-২০ রুল বলতেই বোঝায় আপনার যদি ১০টি পোস্ট হয় তার মধ্যে ৮টি হবে টিপস কিংবা শিক্ষামূলক পোস্ট আর ২টি হবে সেল পোষ্ট। এতে করে আপনার কাস্টমাররা কখনোই আপনার প্রতি বিরক্ত হবে না। যখন আপনি একটি সেল পোষ্ট দেয়ার আগে ৮টি টিপস দিবেন এটা নিয়ে তখন তারা বুঝতে সক্ষম হবে যে কেন তাদেরসেটা কেনা উচিত।


৭. বিভিন্ন অফার দিন

পেইজে ট্রাফিকদের থেকে লাইক ও ভালো এনগেজমেন্ট পেতে চাইলে মাঝে মধ্যে আপনার প্রোডাক্টের ভালো অফার দিতে হবে। অফার দিলে আপনি সহজেই তাদের কাছে দৃষ্টি আকর্ষণ করতে পারবেন এবং তাদের কাছ থেকে সহজেই লাইক পাবেন।‌ তাই মাঝে মাঝে ওকেশনালি বিভিন্ন অফার দিন এবং আপনার পেইজের ট্রাফিককে কাস্টমারে রূপান্তর করতে চেষ্টা করুন।


৮. ছোট ছোট লিখে পোস্ট দেন


অনেক সময় অনেকে বিশাল বড় পোস্ট দেয় ফেসবুকে। কিন্তু কথা হচ্ছে গিয়ে কয়জন আপনার বড় পোস্ট পড়ে? এক জরিপে দেখা গিয়েছে যে, ফেসবুকে মানুষ খুব বড় কিছু পড়ার চেয়ে ছোট কিছু পড়তে বেশি‌ স্বাচ্ছন্দবোধ করে। তাই বড় করে না লিখে তা ছোট করে পোস্ট করুন এবং সহজেই আপনার লাইক বাড়িয়ে নিন। 


৯. ভিডিও দেন

মাঝে মধ্যে পেইজে কিছু ভিডিও দিন। এটা একটা অন্যতম এফেক্টিভ একটি ওয়ে। ইনফেক্ট আমিও নিজেও আমার একটি পেইজে ভিডিও দেয়ার পর পুরো সিনারি চেঞ্জ হয়ে গিয়েছিলো। আসলে মূল কথা হলো মানুষ যা লিখা পড়ে তার চেয়ে বেশি ভিডিও দেখতে বেশি পছন্দ করে থাকে। তাই চেষ্টা করুন কপিরাইট ফ্রি ভিডিও দেয়ার।


১০. গ্রুপ ওপেন করুন

পেইজ তো আছেই। কিন্তু তার পাশাপাশি একটা গ্রুপ ওপেন করুন। সেটা অবশ্যই পেইজ দিয়ে অন্যথায়, গ্রুপ ওপেন করে তারপর সেটাতে পেইজ লিঙ্ক জুড়ে দিন। এখানে আপনি সহজেই গ্রুপ থেকেও পেইজে কিছু ট্রাফিক খুব সহজেই কনভার্ট করতে পারবেন এবং তাদের দিয়ে আপনি অনেক লাইক সহজেই গেইন‌ করতে পারবেন। তাই ফেসবুক গ্রুপ আপনার পেইজ লাইক বাড়াতে বড় ভূমিকা পালন করে থাকে।


আপনাদের সকলের অনুরোধের পর এই আর্টিকেলটি লিখেছি। আশা‌ করি আপনারা সবাই খুব উপকৃত হয়েছেন। আমি আশাবাদী আপনারা যদি এই টিপসগুলো যথাযথভাবে কাজে লাগাতে পারেন তবে আপনার ফেসবুক পেইজের লাইকের জন্য চিন্তা করতে হবে না।‌ তাই অনুরোধ করবো এই টিপসগুলো যথাযথভাবে কাজে লাগানোর চেষ্টা করুন। আপনার ফেসবুক পেইজ অনলাইনে আপনার একটি প্রতিষ্ঠানের ন্যায়। তাই এটাকে যত্ন করুন এটা আপনাকে ভালো একটা আউটপুট দিবে।

Leave a Comment

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.