নিজস্ব সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম আনছে ডোনাল্ড ট্রাম্প

ডোনাল্ড ট্রাম্প। নামটা হয়তো এখনো ভুলে যাননি। আশা করি ভুলবেন না। কেননা তিনি যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাসে অন্যতম আলোচিত ও সমালোচিত এক প্রেসিডেন্টের নাম। বিভিন্ন কান্ডের কারণে সবসময় আলাদা করে আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে ছিলেন যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। তবে যুক্তরাষ্ট্রের এই সাবেক প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প সবসময় সয়লাব থেকেছেন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের মধ্যে ফেসবুক ও টুইটারে সবচেয়ে বেশি এক্টিভ থেকেছেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। আর এবার যুক্তরাষ্ট্রের এই সাবেক প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প নিজস্ব সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম নিয়ে আসতে চলেছেন। গতকাল সোমবার ( ২২শে মার্চ ) এই খবরটি সিএনএন নিশ্চিত করে জানিয়েছেন ডোনাল্ড ট্রাম্পের নিজস্ব সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম খোলার বিষয়টি।


২০১৬ সালের মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে জয়লাভ করে সাবেক প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার স্থলাভিষিক্ত হন ডোনাল্ড ট্রাম্প। তবে এটি নিয়েও অনেক আলোচনা সমালোচনা রয়েছে। কেননা ২০১৬ সালের মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ডোনাল্ড ট্রাম্পের বিপরীতে দাঁড়িয়েছিলেন নারী প্রেসিডেন্ট প্রার্থী হিলারি ক্লিনটন। এখানে একটি বিষয় বলে রাখা ভালো নির্বাচনের আগে হিলারি ক্লিনটন ইলেক্টোরাল ভোট এবং অন্যান্য আনুষঙ্গিক জরিপে এগিয়ে ছিলেন। এমনকি ট্রাম্পের চেয়ে জনপ্রিয়তায় এগিয়ে ছিলেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। তবে আরো একটি উল্লেখযোগ্য বিষয় বলে রাখা ভালো তা হলো আমেরিকার ইতিহাসে আমেরিকানরা কখনো কোনো নারীকে তাদের প্রেসিডেন্টের আসনে বসায়নি। তাই ধারণা করা হচ্ছে এই রীতি বজায় রাখতেই আমেরিকানরা হিলারি ক্লিনটনকে ক্ষমতায় না এনে ডোনাল্ড ট্রাম্পকে ক্ষমতায় আনে। তবে ক্ষমতায় আসার পর থেকেই বিভিন্ন বিষয়ের জন্য তিনি সমালোচনার শীর্ষে ছিলেন। তাকে আমেরিকার অন্যতম ব্যর্থ প্রেসিডেন্ট বলে গণ্য করা হয়। তার সময়কার অন্যতম জঘণ্যতম সিদ্ধান্ত ছিলো জেরুজালেমকে ইসরাইলের রাজধানী হিসেবে ঘোষণা করা।


গত রোববার ২১শে মার্চ যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের মুখপাত্র জেসন মিলার ফক্স নিউজকে জানান। তিনি আরো জানিয়েছেন যে, আগামী তিন মাসের মধ্যে হয়তো যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম আত্মপ্রকাশ করবে। 


চলতি বছর আমেরিকার প্রেসিডেন্টের শপথ গ্রহণের আগে বিভিন্ন সহিংসতার বিষয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে উস্কে দেয়ার অভিযোগে প্রায় সকল সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম থেকে নিষিদ্ধ হয়েছিলেন সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। আর তাই এবার নিজেই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম খুলতে যাচ্ছেন। মিলার মনে করেন ট্রাম্প ফেসবুক ও টুইটারের থেকেও বড় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম খুলতে পারেন।

Leave a Comment

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.