বদলে যাচ্ছে মোহামেডান

একসময়ে ঢাকা লীগের অন্যতম দাপুটে দল ছিলো মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব। তবে সময়ের বিবর্তনে তাল মেলাতে না পারায় এখন ক্লাবটি তার আগের জৌলুস হারিয়েছে। এখন আর আগের মতো অবস্থায় নেই ঢাকার এই ঐতিহ্যবাহী ক্লাবটি। কেননা বর্তমানে যেভাবে ফুটবলে টাকার ছড়াছড়ি তাতে করে অনেকটাই পিছিয়ে রয়েছে মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব। কেননা ক্লাবের অর্থসঙ্কট তো রয়েছেই আর ২০১৯ সালে এক বিতর্কিত কর্মকাণ্ডের পর এখন আরো ব্যাকফুটে রয়েছে মোহামেডান। তবে এতকিছুর পরেও থেমে নেই ঢাকার ঐতিহ্যবাহী এই দলটি। কিছুদিন আগেই ক্লাবটি নির্বাচন সম্পন্ন করেছে। এখন সে সব কিছু গুছিয়ে মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব চায় নতুন উদ্যমে এগিয়ে যেতে। ইতিমধ্যেই ক্লাবটি অনেক পরিকল্পনা শুরু করে দিয়েছে।


তবে মোহামেডান বদলে যেতে যে শুরু করেছে তা কিন্তু অনেক আগেই সূচনা হয়েছে। চলুন একটু ফ্ল্যাশব্যাক থেকে ঘুরে আসি। ২০১৮-১৯ মৌসুমে মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাবের কি অবস্থা ছিলো মনে আছে? নাকি ভুলে গিয়েছেন? যাদের মনে আছে তারা নিশ্চয়ই সেই মৌসুমকে ভুলে যেতে চাইবেন। কেননা যদি বলা হয় সে মৌসুম ছিলো ঢাকার ঐতিহ্যবাহী দল মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাবের জন্য এক লজ্জার মৌসুম। সেই মৌসুমে মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব জর্জরিত হয়েছে নানা ধরনের সমস্যায়। প্রথমেই আসা যাক সেই মৌসুমের খেলার দিকে। সেই মৌসুমে শুরু থেকেই মোহামেডান মাঠের খেলায় মার খেতেই থাকে। এমনকি ছোট ছোট দলের সাথেও বেশ ভালো মতো মার খেতে থাকে। এক পর্যায়ে এমন অবস্থা তৈরি হয় যে মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব রেলিগেশনে চলে আসে। 


তখন ক্লাবের দায়িত্বশীল কর্মকর্তাদের মাথায় চিন্তার ভাঁজ পড়ে যায়। পরে তারা সিদ্ধান্ত নেয় কোচ বদল করার এবং ইউরোপ থেকে কোচ আনার। তখন অনেক খোঁজাখুঁজির পর তারা ইংলিশ কোচ শন দেশকে কোচ হিসেবে নিয়োগ দেয়ার সিদ্ধান্ত নেয়। শন লেন দায়িত্ব নেয়ার পর থেকে হঠাৎ করেই বদলে যেতে থাকে ক্লাবের পরিস্থিতি। মাঠের খেলায় অনেকটাই বদলে যেতে শুরু করে মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব। এছাড়া সেই মৌসুমে কোনোমতে নিশ্চিত রেলিগেশন এড়াতে সক্ষম হয় মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব। যার মূলে ছিলো এই কোচ শন লেনের অবদান। 


পরবর্তীতে দলকে নিয়ে বেশ ভালো পরিকল্পনা সাজান এই কোচ শন লেন। যার ভালো ফল দেখাচ্ছিলো ২০১৯-২০ মৌসুমে। সে মৌসুমে মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব যেন সবার চোখে চোখ রেখে কথা বলছিলো‌। যে শক্তিশালী বসুন্ধরা কিংসকে হারানো কষ্টকর হয়ে যাচ্ছিলো সেই বসুন্ধরা কিংসকে সারাতেও সক্ষম হয় মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব। যদিও করোনা ভাইরাসের সংক্রমণের জন্য আর লীগ অনুষ্ঠিত হয়নি। তবে লীগ যদি অনুষ্ঠিত হতো যে মোহামেডান কিনা আগের মৌসুমে রেলিগেশনে চলে যাচ্ছিলো তারা সেবার ২/৩ নম্বর পজিশনে থাকতে পারতো।


এবার ২০২০-২১ মৌসুমে করোনার পর অনেক কিছু গুছিয়ে উঠা যায় নি। তাই লীগে মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব একেবারে ভালো পজিশনেও নেই, আবার খারাপ পজিশনেও নেই। তারা এখন প্রথম লেগ শেষে ৬ষ্ঠ স্থানে রয়েছে। কোন স্থানে থেকে এই মৌসুম শেষ করবে তা বলা মুশকিল। তবে মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাবের নতুন কমিটি এসেছে এবং নতুন কিছু সাইনিং হতে যাচ্ছে। সব মিলিয়ে ধীরে ধীরে একটা শক্ত ভীত গড়তে যাচ্ছে মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব। 

মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাবের বর্তমান পরিস্থিতি ও ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা সম্বন্ধে ক্লাবের এক কর্মকর্তা বলেছেন, ” আমাদের অনেক দীর্ঘমেয়াদি পরিকল্পনা রয়েছে। আমরা একটা লক্ষ্যে সামনে এগিয়ে যাচ্ছি। আমরা কিছু ভালো সাইনিং করতে যাচ্ছি। আর প্রতিনিয়ত খেলোয়াড়দের মনিটরিং করে যাচ্ছি‌। আমরা আশা রাখছি আগামী ২-১ বছরের মধ্যে শক্তিশালী মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাবকে দেখতে পাবে সকলে।”
মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাবের সাথে জড়িয়ে রয়েছে অনেক ঐতিহ্য এবং অনেক আশা। তাই মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাবের ভক্ত সমর্থকেরাও চায় যে মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব ফিরে পাক তাদের হারানো গৌরব এবং মতিঝিল পাড়ায় ফিরে আসুক কোনো এক ট্রফি‌।

Leave a Comment

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.